sales@shadhinwifi.com

উদ্যোক্তা হোন,সাথে আছে স্বাধীন ওয়াই-ফাই

উদ্যোক্তা@স্বাধীন ওয়াই-ফাই

বর্তমান এই সময়ে তরুণদের একটা বড় অংশ চায় কিছু একটা করতে,নিজেরা নিজের পায়ে দাঁড়াতে। আবার তারা এমন কিছু করতে চায় যেন সেটা সমাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে এবং সমস্যার সমাধান দিতে পারে। এই দিকটা চিন্তা করলে এই মুহূর্তে ইন্টারনেট হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। কারণ শহর থেকে গ্রামে যত বেশি ইন্টারনেটের বিস্তৃতি ঘটবে, ততো বেশি পরিমানে মানুষ ইন্টারনেটের কানেক্টিভিটির মধ্যে আসবে আর যত বেশি পরিমানে মানুষ ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির মধ্যে আসবে ততো বেশি পরিমানে মানুষ শিক্ষা-স্বাস্থ্য-ব্যবসা-ফ্রিল্যান্সিং-এর আওতায় আসবে আর তা মানুষের জীবন যাপন পরিবর্তনে এবং স্বাবলম্বী হতে অনেক বড় ভূমিকা রাখবে। যে কেউ চাইলেই এই বিশাল কর্মযজ্ঞের শামিল হতে পারে এবং নিজে স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি অনেকগুলো মানুষের জীবন বদলে ভূমিকা রাখতে পারে।

আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে, আমাদের একার পক্ষে সারা বাংলাদেশের মানুষের ঘরে ঘরে ইন্টারনেট পৌঁছানো সম্ভব নয়। তাই আমরা সবার ঘরে ঘরে ইন্টারনেট পৌঁছানোর প্রচেষ্টায় আপনাকে আপনাদের সহযোগী হিসেবে পেতে চাই। আপনাকে শুধু হতে হবে উদ্যমী এবং দূরদর্শী।

আমাদের সাথে আপনি দুইভাবে সংযুক্ত হতে পারবেন-

১. নেটওয়ার্ক সেন্টারের মাধ্যমে

২. সাপোর্ট সেন্টারের মাধ্যমে

নেটওয়ার্ক সেন্টার

নেটওয়ার্ক ব্যবসা অনেকটা মাছ ধরার জালের মতই। প্রথমে আপনাকে জাল বুনতে হবে তারপর সুবিধাজনক জায়গাতে আপনাকে জাল ফেলতে হবে এবং কিছুটা সময় আপনাকে মাছ ধরার জন্য অপেক্ষা করতে হবে তারপর আপনার জালে ধীরে ধীরে মাছ আটকাতে শুরু করবে। আপনি আপনার জাল যত বেশি প্রসারিত করবেন মাছ পাবার সম্ভাবনাও তত বেশি থাকবে। আমরা এই উদাহরণ ব্যবহার করলাম শুধু আপনাদেরকে সহজভাবে বুঝানোর জন্য।

সাপোর্ট সেন্টার

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রদানকারী ব্যবসার মূল হল সেবা প্রদান করা। যেহেতু আমরা ইন্টারনেট উৎপাদন করি না , তাই আমাদের মূল কাজ হল এই সেবাটি আমরা কত ভালোভাবে মানুষের হাতে পৌঁছে দিতে পারবো এবং পৌঁছানোর পর গ্রাহক এই সেবাটি যতোটা নিরবিচ্ছিন্নভাবে ব্যবহার করতে পারবে তার উপর নির্ভর করবে আপনি ব্যবসায়িকভাবে কতটা সফল হবেন। শুধু মাত্র গ্রাহককে সংযুক্ত করা নয় বরং সংযুক্ত করার পর তাকে গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করতে হবে , যেন সে সাপোর্ট এ সব সময় সন্তুষ্ট থাকে। কারণ গ্রাহকের এই সন্তুষ্টি আপনার ব্যবসাকে সফলতার শিখরে নিয়ে যাবে।

সেলস পয়েন্ট এবং সেলস এজেন্ট

স্বাধীন ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট এবং তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক অন্যান্য সেবা গ্রাহকের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেয়ার জন্য কাজ করে সেলস পয়েন্ট এবং সেলস এজেন্ট টিম।এতে করে আপনার কাজ অনেক সহজ হয়ে যাবে এবং গ্রাহকও খুুব সহজেই স্বাধীন ওয়াই-ফাই সম্পর্কে জানতে পারবে ও সংযোগ নিতে পারবে।

উদ্যোক্তা রেজাউল করিমের সফলতার গল্প

মিডিয়ার চোখে স্বাধীন ওয়াই-ফাই

আমাদের সহযোগী হতে হলে আপনার করণীয়

  • একটি ১০/১০ অফিস অথবা একটি ঠিকানা যেখানে গ্রাহক আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবে।
  • ২৪ ঘন্টা নতুন গ্রাহক, গ্রাহক সেবা, নেটওয়ার্ক সেবার জন্য একটি ফোন থাকতে হবে।
  • গ্রাহকের সেবার জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী লোকবল থাকতে হবে।
  • ওয়াইফাই হার্ডওয়্যার স্থাপন করার জন্য নিরাপদ স্থান এবং বিদ্যুৎ এর সরবারহ নিশ্চিত করা।
  • আপনার অফিসে ২৪ ঘন্টা যাতায়াত করার জন্য ব্যবস্থা থাকতে হবে।
  • ৪ ঘন্টা বা তার বেশি ক্ষমতা সম্পূর্ণ আইপিএস ব্যবস্থা থাকতে হবে।

আমাদের পক্ষ থেকে আপনাকে যে সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে

  • গ্রাহকের লজিকাল সাপোর্ট যেমনঃ ইন্টারনেট গতি, ভাইরাস, লেনদেন ইত্যাদি যাবতীয় সমস্যার সমাধান অপর ফোনের মাধ্যমে সেবা দিব।
  • গ্রাহকের প্রয়োজনীয় সেবার জন্য ট্রেনিং প্রদান, প্রয়োজনে হাতেকলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।
  • কমপক্ষে ২৫০ থেকে ৫০০ গ্রাহকের জন্য যাবতীয় হার্ডওয়্যার সরবারহ।
  • কমপক্ষে ২৫-৫০ জন গ্রাহকের ক্যাবলের মাধ্যমে ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদানের জন্য যাবতীয় নেটওয়ার্ক হার্ডওয়্যার প্রদান।
  • মার্কেটিং করার জন্য যাবতীয় সরঞ্জাম যেমনঃ ব্যানার ,ফেস্টুন ,স্টিকার সরবারহ করা হবে।
  • আপনার ব্যবসার অগ্রগতি জানার জন্য সফটওয়্যার প্রদান করা হবে।
  • আপনার নেটওয়ার্ক হার্ডওয়্যার এবং ওয়াইফাই হার্ডওয়্যার ২৪ ঘন্টা মনিটরিং করা।
  • আপনাকে ২৪ ঘন্টাই যে কোনো বিষয়ে সেবা প্রদান করা।

প্রশ্ন উত্তরে স্বাধীন ওয়াই-ফাই

আপনি যদি কম্পিউটার কিংবা স্মার্ট মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আমাদের সহায়তা নিয়ে আপনার এলাকা তে ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে পারেন। কোম্পানি আপনাকে টেকনিক্যাল বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিবে।

আপনি যতটুক এরিয়া নিয়ে কাজ করতে চান তার ওপর নির্ভর করবে আপনার ইনভেস্টে পরিমাণ । ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ পরিসরে আপনার ইনভেস্ট করার সুযোগ আছে।

ক্যাবল টানার জন্য লোকবল দিয়ে সহযোগিতা করা, ১০ কি মি ফাইবার অপটিক ক্যাবল প্রদান, আইপি ফোন সেট, সি সি ক্যামেরা। ২৪ ঘণ্টা ফোন সাপোর্ট, প্রয়োজনে টেকনিক্যাল সাপোর্ট টিম প্রেরন, প্রতিদিন ব্যবসার অগ্রগতি দেখার সফটওয়্যার, ২৪ ঘণ্টা আপনার এলাকার সকল নেটওয়ার্ক মনিটর করা, মার্কেটিং সরঞ্জাম প্রদান, লোকাল মার্কেটিং এ সহযোগিতা করা।

আপনি যদি সাপোর্ট পার্টনার ওয়ান হন তাহলে প্রথমেই ২৫০ টি কানেকশন দিতে পারবেন এবং কেবল কানেকশন দিতে পারবেন ২৫ টি। আর যদি সাপোর্ট পাটনার টু হন তাহলে ৫০০ টি কানেকশন দিতে পারবেন এবং ৫০ টি ক্যাবল কানেকশন দিতে পারবেন। মনে রাখবেন এটা আপনার ব্যবসার শুরু, আপনার প্রয়োজন মত আপনি পরবর্তীতে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারন করে নিতে পারবেন।

একজন পার্টনার তার অধীনে সাপোর্ট (পার্টনার ১) নিতে পারবে ১৫ জন এবং সাপোর্ট (পার্টনার ২) নিতে পারবে ১০ জন।

আপনার একটি ১০/১০ ফিট অফিস এর ব্যবস্থা করতে হবে। ভালো বিদ্যুৎ এর সংযোগ এবং ভালো মানের ক্যাবল সংযোগ এর ব্যবস্থা করতে হবে। ৪ ঘণ্টা অথবা তার বেশী ক্ষমতা সম্পন্ন আইপিএস এর ব্যবস্থা করতে হবে । প্রয়োজনে জেনারেটর এর সংযোগের ব্যবস্থা থাকতে হবে । প্রয়োজনে ২৪ ঘণ্টা এসি চালানোর বাবস্থা থাকতে হবে । আপানার অফিসে ২৪ ঘণ্টা যাতায়াত করার ব্যবস্থা থাকতে হবে । ২৪ ঘণ্টা ফোনে সাপোর্ট দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে । ক্যাবল সাপোর্ট দেওয়ার জন্য লোকবল প্রয়োজন মত থাকতে হবে । লোকাল মার্কেটিং করে সাপোর্ট পার্টনার সংযুক্ত করা। আপনার ক্যাবল এবং সাপোর্ট পার্টনার এর সংযোগ এর রক্ষনা বেক্ষন করতে হবে।

আপনার চুক্তিপত্র সম্পন্ন করার পর তিন দিন থেকে ২৬ দিনের মধ্যেই নেটওয়ার্ক সেটআপ করে দেয়া হবে।

সার্ভার র‍্যাক, টিজে বক্স স্টিলের বক্স, ওয়াই-ফাই রাওটার, সুইচ, প্যাচ ক্যাবল, ফাইবার অপ্টিকাল, সুইচ বোর্ড, মাল্টিপ্লাগ সহ যাবতীয় সকল সরঞ্জাম প্রদান করা হবে।

প্রচারণার জন্য কিছু সময় সবাইকে ফ্রি ওয়াইফাই করে দেওয়া হবে। আর কোম্পানির প্রচারের জন্য আপনাকে লিফলেট, ফেস্টু্ন, পিভিসি ব্যানার, ইত্যাদি প্রদান করা হবে।

২৪/৭ অনলাইন সাপোর্ট এবং প্রত্যেক পার্টনারকে পেনেল প্রদান করা হবে যাতে তারা কাস্টমারদের আপডেট এবং লভ্যাংশের পরিমাণ দেখতে পারবেন।

শুরুতে আপনি পাঁচ বছরের জন্য ব্যবসা করতে চুক্তিবদ্ধ থাকবেন এবং পরবর্তীতে আপনাকে পুনরায় চুক্তি করতে হবে। এই ক্ষেত্রে নতুন করে কোন প্রকার বিনিয়োগ করা লাগবে না।

আপনি যদি নেটওয়ার্ক/সাপোর্ট সেন্টার নিতে চায় এমন কাউকে যুক্ত করাতে পারেন তাহলে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণে একটা লভ্যাংশ দেওয়া হবে।

আপনি যে উদ্দেশে ইন্টারনেট ব্যবহার করবেন যেমন: ইউটিউব, ফেসবুক ভিডিও অথবা অন্যান্য ভিডিও স্ট্রিমিং, কথা বা ভিডিও কল করার জন্য ভাইবার, স্কাইপি, হোয়াটসঅ্যাপ বা ভিডিও কলিং, অনলাইন গেমিং যেমন পাবজি সহ অন্যান্য সকল সেবার জন্য যতটুকু ব্যান্ডউইথ প্রয়োজন ততটুকু ব্যান্ডউইথ আপনাকে সরবারহ করা হবে। কোন প্রকার ভিডিও দেখার ক্ষেত্রে বাফারিং হবে না।

আপনার এলাকায় যদি নেটওয়ার্ক সেটআপ থেকে থাকে তাহলে আপনি ফরম পূরন করার পর কানেকশন নিতে পারবেন। কানেকশন নিতে এই লিংক এ ফর্মটি পূরণ করুন

আমরা একটি এলাকায় শুধুমাত্র একজন উদ্যোক্তাকেই সুযোগ দিয়ে থাকি।
তাই অন্য কেউ সুযোগটি নেওয়ার আগেই